।। নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ।।

রাজশাহীতে সরকারি জায়গায় অবৈধ স্থাপনা ও ফুটপাত দখলমুক্ত অভিযানে নামছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক)। আগামী ৪ এপ্রিল রাজশাহী সিটি করপোরেশন এলাকার সকল রাস্তার ফুটপাতের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান চালানো হবে। সে লক্ষ্যে রাসিকের পক্ষ থেকে চালানো হচ্ছে প্রচার-প্রচারণা ও মাইকিং।

রাসিক সূত্র জানায়, রাস্তার ফুটপাত দখল ও সরকারি জায়গা দখল করে যারা স্থাপনা নির্মাণ করেছে তাদের স্থাপনাগুলো উচ্ছেদ করা হবে। রাসিক কর্তৃপক্ষের দাবি উচ্ছেদের পর ফুটপাত পুনরায় দখল হলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। রাসিকের পক্ষ থেকে নগরবাসীকে জানানো হয়, যারা সরকারি জায়গা দখল করে দোকানঘর নির্মাণ করেছেন বা যারা রাস্তার ফুটপাত দখল করে ব্যবহার করছেন তাদের মালামাল ও অবৈধ স্থাপনা আগামী ৩ এপ্রিলের মধ্যে নিজ দায়িত্বে সরিয়ে নিতে হবে। নয় তো, ৩ এপ্রিলের পর রাসিক কর্তৃপক্ষ এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করবে। ওই তারিখের পর স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার জন্য সুযোগ দেয়া হবে না।

রাসিকের দেয়া তথ্য মতে, রাসিক কর্তৃপক্ষ কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে ফুটপাত নির্মাণ করেছেন। কিন্তু রাস্তার ধারের এই ফুটপাতে দোকানদাররা দখল করে দোকানঘর নির্মাণ করেছেন। বেশিরভাগ এলাকার রাস্তার ফুটপাতে দোকানের বিভিন্ন পণ্য রেখে চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। বিশেষ করে নগরের দড়িখড়বোনা থেকে লক্ষীপুর পর্যন্ত রাস্তার ফুটপাত দখল করে আসবাবপত্র রাখা হয়েছে। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দু’পাশের পুরো রাস্তার ফুটপাত দখল করে বসানো হয়েছে দোকানপাট। নগরের জিরোপয়েন্টের রাস্তার দু’ধার দখল করে বসানো হয়েছে দোকানপাট। একই অবস্থা নগরের প্রায় প্রতিটি ফুটপাতের। দীর্ঘদিন থেকেই এসব ফুটপাত দখল হয়ে থাকলেও তা উচ্ছেদ হয়নি। এছাড়া নগরের প্রায় রাস্তার ফুটপাত দখল হয়ে আছে। এতে সাধারণ মানুষ ফুটপাত দিয়ে চলাচল করতে পারেন না। লোকজন ফুটপাত ব্যবহার করতে না পেরে মূল রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে বাধ্য হন। পথচারিদের নিরাপত্তার জন্য এসব ফুটপাত নির্মাণ করা হলেও তা কোনো কাজে আসেনি। দখল হয়ে যাওয়ার কারণে ঝুঁকি নিয়ে পথচারিদের রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে হয়। এরআগে রাসিক কর্তৃপক্ষ ফুটপাতে উচ্ছেদ অভিযান চালানোর কয়েক দিন যেতে না যেতেই আবারো দখল হয়ে যায়। যার ফলে এবার ফুটপাত স্থায়ীভাবে দখলমুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও নগরের বেশকিছু এলাকায় সরকারি জায়গা দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করা হয়েছে সেগুলোও উচ্ছেদ করা হবে।

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের ম্যাজিস্ট্রেট সমর কুমার পাল জানান, বর্তমানে নগরের প্রায় ৮০ ভাগ ফুটপাত দখল হয়ে আছে। এসব ফুটপাত দখল করে দোকানপাট নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়াও কিছু কিছু এলাকায় ফুটপাতে ভ্রাম্যমাণ দোকানপাট বসিয়ে ব্যবসা করা হচ্ছে। এতে পথচারিরা এই ফুটপাত ব্যবহার করতে পারছেন না। ইতিমধ্যে এসব জায়গা দখলমুক্ত করতে একাধিকবার নোটিশ করা হয়েছে। কিন্তু দখলদাররা ফুটপাত দখলমুক্ত করেনি। ফলে রাসিক কর্তৃপক্ষ এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তিনি জানান, শুধু রাস্তার ফুটপাত নয়, সরকারি জায়গায় ১০তলা ভবন থাকলেও তা উচ্ছেদ করা হবে। সে লক্ষ্যে আগামী ৩ এপ্রিলের মধ্যে সকল অবৈধ স্থাপনা নিজ খরচে ও দায়িত্বে সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এই নোটিশের পর আর কোনো সময় বাড়ানো হবে না।

রাসিকের প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক জানান, এরআগে রাসিকের সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের উদ্যোগ নেয়া হয়। কিন্তু রাসিকের ম্যাজিস্ট্রেট না থাকার কারণে তা সম্ভব হয়নি। এখন রাসিকে ম্যাজিস্ট্রেট যোগদান করেছেন। পর্যায়ক্রমে নগরের সকল রাস্তার দখল হওয়া ফুটপাত ও সরকারি জায়গায় নির্মাণ করা স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে। তবে এবার উচ্ছেদ করার পর পুনরায় দখল করা হলে দখলকারিদের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেয়া হবে।