বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন

সানি সারোয়ার, বাংলাদেশের ছেলে। থাকেন যুক্তরাষ্ট্রে। সৌরবিদ্যুৎ মজুদ করার নতুন পদ্ধতির আবিষ্কার করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী ম্যাগাজিন ফোর্বসের তালিকায় নাম লিখিয়ে নেন উনিশ বছরের সানি।

উল্লেখ্য যুক্তরাষ্ট্রের ত্রিশজন আবিষ্কারক ও উদ্যোক্তার তালিকায় যাদের নাম উঠেছে তাদের সবার বয়স ৩০ বছরের কম।  

বিশ্বে জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় সৌরবিদ্যুৎ, বায়ুবিদ্যুতের ব্যবহার প্রতিনিয়তই বাড়ছে। প্রথমে এসব বিদ্যুৎ শুধু যেখানে উৎপাদিত হতো শুধু সেখানেই ব্যবহার করা হতো। পরে গ্রিডের মাধ্যমে অন্য জায়গায় ব্যবহারের সুযোগ তৈরি হয়। আর এখন ল্যাপটপের মতো বাক্সবন্দি করে এক স্থান থেকে আরেক স্থানে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা আবিষ্কার হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে।

এই গবেষণার কাজটির সাথে যুক্ত আছেন বাংলাদেশের সানি। একই সাথে নিজের প্রতিষ্ঠান তৈরি করে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন রাজ্যে বিদ্যুতের বাক্স ছড়িয়ে দেয়ার জন্য কাজ করছেন তিনি। ফোর্বসের এই তালিকাতে নিজের নাম থাকাকে বাংলাদেশের গর্ব হিসেবে দেখছেন তিনি। তার পিতা অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল সারোয়ার ও মা নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. কামরুন্নাহার।

সানি যুক্তরাষ্ট্রেই হাইস্কুল থেকে মাস্টার্স পর্যন্ত পড়াশোনা করেছেন এবং সেখানেই পিএইচডি করেছেন। তিনি মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ওপর ডিগ্রি অর্জন করেন এবং লিথিয়াম-পলিমার ব্যাটারি ‘ভার্ডটুজিও’র ব্যবসা করে ২০১৬ সালে ব্যাপক সফলতা লাভ করেন এই তরুণ।