বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন

সাব্বিরের দুর্দান্ত ইনিংস বৃথা গেলটানা তিন হারের পর বিপিএলে জয়ের দেখা পেল রংপুর রাইডার্স, যার মধ্যে সবশেষটি ছিল সিলেট সিক্সার্সের কাছে। এবার সেই দলকে ৪ উইকেটে হারিয়ে প্রতিশোধ নিলো বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

বিধ্বংসী সাব্বির রহমানের ব্যাটে ৪ উইকেটে ১৯৪ রান করেছিল সিলেট। ৫১ বলে ৫ চার ও ৬ ছয়ে ৮৫ রান করেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। জবাবে ১৯.৩ ওভারে ৬ উইকেটে ১৯৫ রান করে রংপুর।রংপুর আগের দেখায় সিলেটের কাছে ১৮৮ রানের টার্গেট পেয়ে হেরে যায়। সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে এবার তার চেয়েও বেশি রানের লক্ষ্য দেয় স্বাগতিকরা। কিন্তু দুই দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যানের কল্যাণে সহজ জয় পেয়েছে রংপুর।

বিপিএলে অভিষেকের ম্যাচ রাঙাতে ভুল করেননি এবি ডি ভিলিয়ার্স। ৬৩ রানের মধ্যে ক্রিস গেইল (০) ও অ্যালেক্স হেলস (৩৩) বিদায় নিলে মাঠে নামেন তিনি। জাতীয় দলের সতীর্থ রাইলি রোসোর সঙ্গে ৬৭ রানের দারুণ জুটি গড়েন ডি ভিলিয়ার্স। ২১ বলে ২টি করে চার ও ছয়ে ৩৪ রান করেন এই প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান।

তার ৫ বল আগে তাসকিন আহমেদ ফেরান রংপুরের সর্বোচ্চ স্কোরার রোসোকে। ৩৫ বলে ৯ চার ও ২ ছয়ে সাজানো ছিল তার ৬১ রানের ইনিংস। এই জোড়া আঘাতের পরও আশা হারায়নি চ্যাম্পিয়নরা। মোহাম্মদ মিঠুন ও নাহিদুল ইসলামের ৩৭ রানের জুটি জয়ের পথে রেখেছিল তাদের। যদিও আবার তাসকিনের জোড়া আঘাতে ফিরে যান দুজনই। মিঠুন ১৪ ও নাহিদুল ১৯ রানে মাঠ ছাড়েন।

শেষ ২ ওভারে রংপুরের দরকার ছিল ২৪ রান। অধিনায়ক মাশরাফি ও ফরহাদ রেজা ক্রিজে থেকে প্রয়োজনীয় রান তুলে নেন। শেষ ওভারে ৫ রান করতে হতো তাদের। ফরহাদ শেষ ওভারের তৃতীয় বলে জয়সূচক বাউন্ডারি হাঁকান। ৬ বলে ২ চার ও ১ ছয়ে ১৮ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। প্রথম বলেই চার মারা মাশরাফি টিকে ছিলেন ৫ রানে।

তাসকিন ৪ ওভারে ৪২ রান দিয়ে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নেন। ম্যাচসেরা হয়েছেন রোসো।

রংপুর ৭ ম্যাচ শেষে ৬ পয়েন্ট নিয়ে তিনে উঠে গেছে। সমান খেলে মাত্র ৪ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তম দল সিলেট।