পড়তে পারবেন < 1 মিনিটে

“কেউ খারাপ হলে তার স্ত্রী বা পিতা খারাপ হবেন, তা তো বলা যায় না৷”

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ
বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন তালিকায় ঠাঁই হয় নি বিতর্কিত কয়েক নেতার। এদের মধ্যে কেউ কেউ সংসদ সদস্যও আছেন। তবে শেষাবধি দলটি সেইসব বিতর্কিত নেতাদের স্বজনদের ওপরই আস্থা রেখেছে। 

এবারের নির্বাচনেও সবচেয়ে আলোচিত কক্সবাজারের বর্তমান সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি৷ ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে তার নাম সবচেয়ে বেশি উচ্চারিত হয়৷ তাই কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনের বদি এবার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পান নি৷ কিন্তু তার বদলে পেয়েছেন তার স্ত্রী শাহীন আখতার৷ এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে৷ 

টাঙ্গাইল-৩ আসনে মনোনয়ন পাননি আওয়ামী লীগের বর্তমান সংসদ সদস্য আমানুর রহমান রানা৷ রানা আওয়ামী লীগেরই এক নেতাকে হত্যার দায়ে এখন কারাগারে৷ কিন্তু তাতে কী? আওয়ামী লীগ এই আসনে মনোনয়ন দিয়েছে রানার বাবা আতাউর রহমান খানকে৷

এসব প্রার্থী সম্পর্কে নিয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ গণমাধ্যমে বলেন,‘‘আমরা যাচাই-বাছাই করেই প্রার্থী দিয়েছি৷ যেসব অভিযোগের কথা বলা হচ্ছে তা তো আদালতের মাধ্যমে প্রমাণিত নয়৷ আর কেউ খারাপ হলে তার স্ত্রী বা পিতা খারাপ হবেন, তা তো বলা যায় না৷ তাই যদি হয়, তাহলে তারেক রহমান তো দণ্ডিত৷ তার স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমান তো নির্বাচন করতে আসতে চেয়েছিলেন৷ অনেকেই তো তাকে স্বাগত জানিয়েছেন৷’’

আরো পড়ুন : ধানের শীষের মনোনয়নে যুদ্ধাপরাধ-জঙ্গি অর্থায়ন মামলার আসামী

Berger Weather Coat