Loading...
উত্তরকাল > বিস্তারিত > শোবিজ > আসছে শেখ হাসিনা আ ডটারস টেল

আসছে শেখ হাসিনা আ ডটারস টেল

পড়তে পারবেন 2 মিনিটে
আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেতা শেখ হাসিনা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা- এই তিন পরিচয়ে শেখ হাসিনাকে নতুন করে চিনিয়ে দেওয়ার কিছু নেই।

কিন্তু রাজনীতিবিদ আর রাষ্ট্রনায়কের অন্তরালে থাকা শেখ হাসিনার গল্প অনেকটাই অজানা; এক রাতেই বাবা-মা-ভাইদের হারিয়ে নির্বাসিত জীবনে বুকের গভীরে কষ্ট চেপে কীভাবে আবার ঘুরে দাঁড়ালেন তিনি; সেই সংগ্রামের কথা জানে খুব মানুষই।

শেখ হাসিনার সেই অজানা-অদেখা গল্পগুলোই ‘শেখ হাসিনা: আ ডটার’স টেল’ এর উপজীব্য বলে জানালেন সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) নির্বাহী পরিচালক সাব্বির বিন শামস।

আগামী ১৬ নভেম্বর প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে যাওয়া এই প্রামাণ্যচিত্রটি নির্মাণ করেছে এই গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি। তার আগের দিন বৃহস্পতিবার বসুন্ধরা সিটির স্টার সিনেপ্লেক্সে হবে প্রিমিয়ার প্রদর্শনী।

প্রামাণ্যচিত্রটি নির্মাণের কারণ এবং নির্মাণ করতে গিয়ে নানা অভিজ্ঞতা নিয়ে ঢাকার কৃষিবিদ ইনস্টিটিটিউটে মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে আসেন প্রযোজক সিআরআইর কর্মকর্তা সাব্বির ও নির্মাতা পিপলু খান।

নির্মাতা পিপলু খান বলেন, “বঙ্গবন্ধুকন্যা, যার জীবনে এত উত্থান-পতন রয়েছে, আমার কাছে মনে হয়েছে আমি কী করে এই ছবিটাকে আরও বিস্তৃত করে তুলে ধরতে পারি। আমাকে খুব স্বাভাবিকভাবেই আকর্ষণ করেছে তার জীবনের সাহসের সঙ্গে উত্থানের গল্প।”

শেখ হাসিনাকে নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণে খুব স্বাভাবিকভাবেই এসেছে বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে তার সম্পর্ক, তার সংস্পর্শে বেড়ে ওঠা, বাবার রাজনৈতিক আদর্শের প্রতি তার অবিচল আস্থা ও বিশ্বাসের বিষয়টি।

পিপলু বলেন, “তাছাড়া শেখ রেহানার কথাও এখানে খুব স্বাভাবিকভাবে চলে আসে। কারণ তারা দুই বোন হরিহর আত্মা। পরস্পরের জীবনের খুব গুরুত্বপূর্ণ অংশ।”

প্রামাণ্যচিত্রটি নির্মাণ করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহচর্য পাওয়ার কথাও উঠে আসে পিপলুর কথায়।

“ঠাকুর বাড়িতে কী রান্না হত, সেটা আমরা জানি, অথচ জাতির জনকের স্ত্রীর নাম রেনু, এটা আমার ছেলে জানে না কেন? সুলতানা কামাল কত সুন্দর করে শাড়ি পড়তেন, এটা আমাদের মেয়েরা ফলো করে না কেন? খুব সাধারণ বিষয় মনে হতে পারে, তবুও আমাদের একটা রিসার্চ টিম ছিল। ডকুমেন্টরিতে তারা অনেকগুলো বিষয়কে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে তুলে এনেছেন।”

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ১৬ নভেম্বর থেকে বসুন্ধরা সিটির স্টার সিনেপ্লেক্স, যমুনা ফিউচার পার্কের ব্লক বাস্টার মুভি, মতিঝিলের মধুমিতা হল ও চট্টগ্রামের সিলভার স্ক্রিনে একযোগে প্রদর্শন শুরু হবে ‘শেখ হাসিনা: আ ডটার’স টেল’ এর।

সিআরআইর ব্যানারে প্রামাণ্যচিত্রটির প্রযোজক থাকছেন রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ও নসরুল হামিদ বিপু।

প্রামাণ্যচিত্রটির সঙ্গীতায়োজনে ছিলেন দেবজ্যোতি মিস্ত্র, সিনেমাটোগ্রাফিতে সাদিক আহমেদ, সম্পাদনা করেছেন নবনীতা সেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সিআরআইর ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর শিবু কুমার শিল, গ্রে ঢাকার হেড অ্যান্ড ম্যানেজিং পার্টনার সৈয়দ গাউসুল আলম শাওন। 

সবশেষ আপডেট

উত্তরকাল

বিশ্বকে জানুন বাংলায়

All original content on these pages is fingerprinted and certified by Digiprove
%d bloggers like this: